মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

সিটিজেন চার্টার

সংযুক্ত:সিটিজেনচার্টার

 

                                                  যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের ভিশন:

১।   অনুৎপাদনশীল যুবসমাজকে সুসংগঠিত,সৃশৃংখল এবং উৎপাদন মুখী শক্তিতে রুপান্তরিত করা।

২।    দক্ষতাবৃদ্ধি মূলক উন্নয়ন কর্মকান্ডে যুবদের সম্পৃক্ত করা।

 

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের লক্ষ্য:

     ১।   উদ্বুদ্ধকরণ,প্রশিক্ষণ,ক্ষুদ্র ঋণ ও অন্যান্য সহায়তার মাধ্যমে যুবদের কর্মসংস্থানে নিয়োজিত করা।

২।   সেচ্ছাসেবী যুবসংগঠনের মাধ্যমে গোষ্ঠি উন্নয়নে সহায়তা করার জন্য যুবদের বিভিন্ নগ্রুপে সংগঠিত করা।

৩।  স্থানীয় পর্যায়ে যুব সংগঠনের সংখ্যাবৃদ্ধির মাধ্যমে অংশ গ্রহণ মূলক উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় তাদের সমপৃক্ত করা।

৪।যুবদের আর্থ সামাজিক কার্যকলাপ যেমন :গণশিক্ষা কার্যক্রম, দুর্যোগব্যবস্থাপনা, প্রাথমিকসাস্থ্যপরিচর্যা, পরিবেশ উন্নয়ন ইত্যাদিতে সম্পৃক্তকরণ ও সমাজবিরোধী কার্যকলাপ, মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার,ইভটিজিং প্রতিরোধ,এইচআইভি/এইডসবিষয়েসচেতনতাবৃদ্ধিকরা।

৫।যুবদের  ক্ষমতায়নের নিমিত্তে আত্মকর্মসংস্থানমূলক প্রকল্পস্থাপন এবং সিদ্ধান্তগ্রহণ মূলক

প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণের পদক্ষেপগ্ রহণ করা।

 

 

        যুবউন্নয়ন অধিদপ্তর,গংগাচড়া কার্যালয় থেকে প্রদত্ত সেবা/সুবিধ সমুহ:

১।     যুবপ্রশিক্ষণ:

(ক)১৮থেকে৩৫বছরবয়সিবেকারযুবক/যুবমহিলাদেরআত্মকর্মসংস্থানেনিয়োজিতকরারজন্য৪১টিঅপ্রাতিষ্ঠানিকট্রেডও৪১টিপ্রতিষ্ঠানিকট্রেডেপ্রশিক্ষণেরব্যবস্থাআছে।অপ্রতিষ্ঠানিকট্রেডসমুহযথা:

     (i) পারিবারিকহাঁসমুরগীপালন

     (ii) গবাদীপশুপালন

     (iii) মৎসচাষবিষয়ক

     (iv) কৃষিবিষয়ক

     (v) অন্যান্যবিষয়ক

 

        প্রতিষ্ঠানিক ট্রেড সমূহ যথা:

     (i) গবাদীপশু,হাঁসমুরগীপালন,প্রাথমিকচিকিৎসা,মৎসচাষওকৃষিবিষয়ক।

     (ii) পোষাকতৈরী

     (iii) মডার্নঅফিসম্যানেজমেন্ট

     (iv) কম্পিউটারবেসিক

     (v) ইলেকট্রিক্যালএন্ডহাউজওয়্যারিং

     (v) ইলেকট্রনিক্স

     (v) ইত্যাদি

        (অপ্রতিষ্ঠানিক ট্রেড সমুহ উপজেলা ও প্রতিষ্ঠানিক ট্রেড সমূহ জেলা থেকে পরিচালিত হয়)

 

সংযুক্তপাতানং-৩


২।   আত্মকর্মসংস্থান:

প্রশিক্ষণ গ্রহণকারী যুবক/যুবমহিলাদের বিভিন্ন আয় বর্ধক কর্মকান্ডে উৎসাহিত করা হয়। বিভিন্ন প্রকল্প,খামার,পুকুর,হ্যাচারী,বাগান ইত্যাদি তৈরী ও সম্প্রসারণ করতে দপ্তরের কর্মকর্তা/কর্মচারী গণ যুবদের উদ্বুদ্ধ ও প্রয়োজনীয় পরামর্শ প্রদান করেন। এদ্বারা নিবির তদারকীর মাধ্যমে তাদের প্রকল্প হতে মাসিক নির্দিষ্ট পরিমান আয় করতে সচেষ্ট হন।

 

৩।   যুব ঋণ:

প্রশিক্ষিত যুবদের যুব ঋণ সহায়তা ও উদ্বুব্ধ করণের মাধ্যমে আত্মকর্মে নিয়োজিত করা হয়। প্রশিক্ষিত যুবক/যুবমিহলা যারা নিজ উদ্যোগে প্রাথমিক ভাবে প্রকল্প গ্রহণ করে থাকে তাদের প্রকল্প সম্প্রসারনের জন্য যুব ঋণ সহায়তা দেয়া হয়।প্রতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ কোর্সে একক ভাবে ২৫,০০০/-টাকাথেকে ৫০,০০০/-টাকা এবং প্রাতিষ্ঠানিক কোর্সে ৫০,০০০/-টাকা থেকে ১,০০০০০/- টাকা পর্যন্ত ঋণ প্রদান করা হয়।

 

৪।    নেটওয়ার্কিং জোরদার করণ:

ক্লাব ভিত্তিক যুব কর্মসূচী সারাদেশে সম্প্রসারন ও জোরদার করণের মাধ্যমে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর ও বেসরকারি যুব সংগঠনের মধ্যে কর্মসূচি ভিত্তিক নেটওয়ার্কিং জোরদার করা হয়। নেটওয়ার্কিং এর মাধ্যমে বেকার যুবদের লাভজনক কর্মসংস্থানের জন্য যুব সংগঠনের সহায়তায় স্থানীয় চাহিদা ভিত্তিক জীবন দক্ষতা ও দক্ষতা বৃদ্ধি মূলক প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়।

 

৫।    যুব সংগঠন তালিকা ভুক্তি করণ অনুদান:

দেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়ন কর্মকান্ডে যুবসংগঠন সমুহকে বিভিন্ন কর্মসূচীর মাধ্যমে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর সম্পৃক্তকরে থাকে। যুবসংগঠন সমুহকে দেশের উন্নয়ন কর্মকান্ডে অধিকহারে অংশগ্রহণ করানোর লক্ষ্যে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের মাধ্যমে এদের তালিকা ভুক্ত করা হয়। এছাড়া যুব সংগঠন সমুহকে কর্মসূচী ব্যাস্তবায়নের জন্য যুব কল্যাণ তহবিল থেকে অনুদান প্রদান করা হয়ে থাকে।

 

৬।   উদ্বুদ্ধকরণসচেতনতা বৃদ্ধি মূলক কর্মসূচী:

এ কর্মসূচীর মাধ্যমে যুবদের এইচআইভি/এইডস/এসটিডি প্রতিরোধ,প্রজনন,মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার,সামাজিকরীতি, মূল্যবোধ,জেন্ডার ও উন্নয়ন,সুশাসন,দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, পরিবেশসংরক্ষণ,সিভিকএডুকেশন,জনসংখ্যানিয়ন্ত্রণ,পরিবার কল্যাণ ইত্যাদি বিষয়ে উদ্বুদ্ধ করণ ও সচেতনতা বৃদ্ধি করা হয়।


Share with :

Facebook Twitter